গৃহকর্মী নিয়োগে আদালতের ৬ নির্দেশনা-

Chattala24
  • 14
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    14
    Shares

ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় রোববার (৪ অক্টোবর) দুই গৃহকর্মী রিতা আক্তার ওরফে স্বপ্না এবং রুমা ওরফে রেশমার মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। আর রায়ের পর্যবেক্ষণে বাসা-বাড়িতে গৃহকর্মী রাখার ক্ষেত্রে জরুরিভাবে ছয়টি নির্দেশনা দিয়েছেন ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান।

পর্যবেক্ষণে বিচারক বলেন, ‘গৃহকর্মী মোসাম্মৎ রেশমা আক্তার ওরফে রুমা ও রিতা আক্তার ওরফে স্বপ্নার মতো আর কেউ যেন ভুলপথে অগ্রসর হতে না পারে সেজন্য বাসা-বাড়িতে গৃহকর্মী রাখার ক্ষেত্রে গৃহকর্তা-গৃহকর্তীকে জরুরিভাবে সতর্ক হতে হবে।’

নির্দেশনাগুলো হলো-

১. গৃহকর্মী নিয়োগের তারিখ থেকে ৯০ দিন পর্যন্ত তাকে সতর্কভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারেন, যাতে তারা বাসার মূল্যবান মালামাল চুরি করে পালিয়ে যেতে না পারে। গৃহকর্মী কোনো অন্যায় কাজ করলে গৃহকর্তা বা গৃহকর্তী তাকে কোনোরূপ আঘাত বা মারধর না করে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট থানায়/সমাজসেবা অফিসারকে অবগত করবেন।

২. বাসার গৃহকর্মী রাখার ক্ষেত্রে অবশ্যই গৃহকর্মীর বিস্তারিত তথ্য রাখা উচিত। এক্ষেত্রে গৃহকর্মীর ছবি ও জীবন বৃত্তান্ত রাখতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট থানায় তার ছবি ও জীবনবৃত্তান্তের একটি কপি জমা দিতে হবে।

৩. বাসার মূল গেটে সিসি ক্যামেরা না থাকলে অবিলম্বের সিসি ক্যামেরা স্থাপনে ব্যবস্থা নিতে হবে।

৪. কোনো গৃহকর্মী যদি অন্য কোনো গৃহকর্মীকে কোনো বাসায় কাজ দেয় তাহলে সংশ্লিষ্ট থানায় ওই গৃহকর্মীরও নাম-ঠিকানা সংরক্ষণপূর্বক অবগত করতে হবে।

৫. গৃহকর্মী সরবরাহ প্রতিষ্ঠানগুলোকে অবশ্যই লাইসেন্স করতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট থানাকে ওই কোম্পানির কার্যক্রম বিষয়ে অবগত করতে হবে। ওই প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স না থাকলে তার কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে।

৬. গৃহকর্মী সরবরাহ প্রতিষ্ঠান কর্মীর ছবি ও জীবন বৃত্তান্ত সংশ্লিষ্ট থানায় অবশ্যই জমা দিতে হবে। রাজধানীসহ অন্যান্য জেলার বাসিন্দাদের এ বিষয়ে সচেতন ও সতর্ক হওয়া খুবই জরুরি বলে পর্যবেক্ষণে বলেন বিচারক।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *