চট্টগ্রামে দৌরাত্ম বেড়েছে অটোরিকশা চালকবেশি অপরাধীদের

Chattala24
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

চট্টগ্রামে সিএনজি অটোরিকশা চালকবেশি অপরাধীদের দৌরাত্ম বেড়েছে। ছিনতাই, অপহরণ, ধর্ষণসহ নানা অপরাধে জড়িত এই অপরাধীরা। এসব নিয়ন্ত্রণে পুলিশের উদ্যোগও তেমন নেই বললেই চলে। সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিকদের সংগঠন বলছে, দাগী অপরাধীরা এই পেশায় অনুপ্রবেশ করায় বাড়ছে অপরাধ, যাদের ব্যাপারেও নেই সঠিক কোনো তথ্য।

বিগত ২৯ শে আগস্ট বায়েজিদে সিএনজি অটোরিকশা থেকে নামিয়ে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে পাঁচ অটোরিকশাচালক। পরে স্বামী কৌশলে ট্রিপল নাইনে ফোন করেন। রক্ষা পান তিনি এবং উদ্ধার হন স্ত্রী। এর আগে সাত মাসে খুলশী এলাকায় ৮ শিশুকে একই কায়দায় তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে অটোরিকশাচালক বেলাল দফাদারের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে ছিলো ১০টি ধর্ষণ মামলাসহ ১৪টি মামলা। ২৩ জুলাই পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন এই ‌’সিরিয়াল রেপিস্ট’।

এছাড়া শহরে ছিনতাইসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে আছে একশ্রেণির অটোরিকশাচালক। রাতে একা যাত্রী উঠলে সর্বস্ব লুটে নিচ্ছে তারা।

চট্টগ্রাম শহরে এখন সরকার অনুমোদিত সিএনজি অটোরিকশার সংখ্যা ১৩ হাজার দুইশ। এর বাইরে অনুমোদনহীন আছে আরো অন্তত দুই হাজার। এসব অটোরিকশা চালানোর সঙ্গে যুক্ত অন্তত কুড়ি হাজার চালক। তাদের মধ্যে লুকিয়ে আছে চালকবেশি অপরাধীরা।

যাত্রীদের নিরাপত্তায় গত ডিসেম্বরে ঘটা করে অটোরিকশার ভেতরে পরিচিতি কার্ড প্রদর্শনের উদ্যোগ নিয়েছিলো পুলিশ। কিন্তু করোনা সংকটে সেই উদ্যোগেও ভাটা পড়েছে।

রাতে অটোরিকশায় ওঠার আগে নম্বর প্লেটের ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কাউকে পাঠিয়ে রাখার পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *