নিজের পুরোনো গান নতুন করে উপস্থাপন করবেন কুমার বিশ্বজিৎ

Chattala24
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কুমার বিশ্বজিতের সংগীতজীবন দীর্ঘ ও বর্ণাঢ্য। এই দীর্ঘ ‍সংগীতজীবনে তিনি বাংলাদেশের শ্রোতাদের উপহার দিয়েছেন অনেক জনপ্রিয় গান। প্রকাশিত হয়েছে অনেক অ্যালবাম। তাঁর প্রকাশিত সেসব গান থেকে বেশ কিছু গান নতুন করে এই প্রজন্মের শ্রোতাদের কাছে তুলে ধরতে চান তিনি। এই গানগুলোতে কম্পোজিশন, গায়কি থেকে শুরু করে নানা রকম পরিবর্তন থাকছে। এই সংগীতশিল্পী মনে করেন, করোনাকালে গানের যে সংকট চলছে, সেই সংকট কাটাতে এই গানগুলো কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখবে।
ইতিমধ্যে ৪৮টি গান রিমেক করার জন্য বাছাই করেছেন তিনি। এই সংখ্যা পর্যায়ক্রমে আরও বাড়বে। গানগুলো নতুন আঙ্গিকে তৈরি করা প্রসঙ্গে কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, ‘অনেক ভালো গানের ভিড়ে হয়তো কিছু গান সেভাবে শ্রোতাদের সামনে আসেনি বা সাড়া ফেলেনি। অথচ গানের কথা যেমন সমৃদ্ধ, সুরও শ্রুতিমধুর।

সেই গানগুলোসহ আমার ভালো লাগা ও জনপ্রিয়তা পাওয়া গানও এই তালিকায় আছে। এই গানগুলো নতুন করে সংগীতায়োজন করলে আমার শ্রোতারা পুরোনো গান নতুন স্বাদে পাবেন। আবার বর্তমানে সংগীতাঙ্গনে গানের কথা ও সুরের যে সংকট চলছে, সেখানে খানিকটা হলেও ঘাটতি পূরণে কাজে আসবে।’
কুমার বিশ্বজিৎ জানান, এই আয়োজনে বেশ কিছু গান আছে, যেগুলো তিন যুগ আগের তাঁর ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে গেয়েছিলেন। গানগুলোতে কী ধরনের পরিবর্তন থাকতে পারে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কিছু গানের কম্পোজিশন পরিবর্তন করব। কিছু আনপ্লাগ করব। বেশ কিছু গানের গায়কিতে আরও ইম্প্রোভাইজ থাকবে। নতুন গানের সাউন্ড আগের চেয়ে অনেক গুণ ভালো হবে। সময়কে প্রাধান্য দিয়েই গানগুলো করছি।’

নতুন করে ‘গতকাল ছিল তোমার জন্মদিন’, ‘তুমি ভুল করে এসেছিলে কি না জানি না’, ‘তুমি আনন্দ আশ্রম আমার মনে’, ‘দস্যু যেমন মুখোশ পরে’, ‘এখন অনেক রাত’, ‘ও ডাক্তার’, ‘তুমি যদি বলো পদ্মা মেঘনা’, ‘পুতুলের মতো করে সাজিয়ে’, ‘তুমি রোজ বিকেলে’, ‘চতুর দোলাতে চড়ে ওই বধূ যায়’, ‘নির্বাসনে যাব না’, ‘চন্দনা গো’ ইত্যাদি গান পর্যায়ক্রমে নতুন আঙ্গিকে তৈরি হবে।

গানগুলো নতুন উপস্থাপনার চূড়ান্ত করতে খুব বেশি সময় নিতে চান না এই গায়ক। তাঁর ইচ্ছা একসঙ্গে পাঁচটি করে গানের কাজ শেষ করে মুক্তি দেবেন। আগামী ডিসেম্বর থেকে একটি অনলাইন চ্যানেলে গানগুলো পর্যায়ক্রমে প্রকাশ পাবে। এসব গানের মধ্যে বেশির ভাগই গীতিকবি লিটন অধিকারী রিন্টুর লেখা। আছে ড. গোলাম মোস্তফা, সালাউদ্দিন সজল প্রমুখের লেখা। পুরোনো এই গানগুলোর বেশির ভাগেরই নেই মিউজিক ভিডিও। তিনি জানান, স্বল্প পরিসরে গানগুলোর ভিডিও তৈরির পরিকল্পনা আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *