রূপসা মাল্টিপারপাস: গ্রাহকের ৪ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের পায়তারা

Chattala24
  • 207
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    207
    Shares

২ হাজার গ্রাহকের প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা নিয়ে ছিনিমিনি খেলার অভিযোগ উঠেছে চট্টগ্রামের ইপিজেড বন্দরটিলা এলাকার রূপসা মাল্টিপারসের বিরুদ্ধে।

টাকা জমা রাখলেই নির্দিষ্ট সময় পর মিলবে বিপুল লাভ। কিন্তু লাভ তো দূরের কথা, এখন অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে জমানো টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে। চট্টগ্রামে গ্রাহকদের প্রায় চার হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে রূপসা কিং গ্রুপ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগী রুবিনা বেগম বলেন, ‘এ মাসে না পরের মাসে। আবার বলে আগামী বছর। আট মাস চলে গেছে এখন ৯ মাস চলছে। এখন টাকা নিয়ে ঘুরাঘুরি করছে, দিচ্ছে না।’

চট্টগ্রাম ইপিজেডের রুবিনা বেগমের মতো অনেকেই লাভের আশায় জমা রাখেন টাকা। রূপসা মাল্টিপারপাসের পাতানো ফাঁদে পড়ে লভ্যাংশ দূরের কথা জামানতের আসল টাকা পাওয়া নিয়েই অনিশ্চয়তায় তারা।

ভুক্তভোগী আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘এ সপ্তাহে না আগামী সপ্তাহে, এখন আবার জানুয়ারিতে তারিখ দিয়েছে। লকডাউনের আগে দেয়ার কথা ছিলো।’

রুপসা মাল্টিপারপাসের অধিকাংশই গ্রাহক ইপিজেডের পোশাক শ্রমিক। তারা বলেন, ‘যেভাবে বুঝিয়েছে সেভাবেই বুঝেছি। মনে করেছি এখানে টাকা রাখলে কিছু লাভ পাবো।’

২০০৬ সালে ১৪ জন পরিচালকের সমন্বয়ে গঠিত হয় রূপসা কো-অপারেটিভ মাল্টিপারপাস সোসাইটি। অভিযোগ দুই হাজার গ্রাহকের কাছে প্রায় ৪ হাজার কোটি জামানত আছে তাদের কাছে।

নানা অভিযোগে গত জানুয়ারি মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে অভিযান চালিয়ে ৮ কোটি ৪২ লাখ টাকা জব্দ ও প্রতিষ্ঠানের ভাইস চেয়ারম্যান মুছা হাওলাদার, পরিচালক গোলাম ফয়সাল ও রাসেল হাওলাদারকে গ্রেপ্তার করে ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশ।

রুপসা উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের মার্কেটিং ম্যানেজার মোহাম্মদ জাহিদ হোসেন মেহেদী বলেন, ‘একসঙ্গে দিতে পারছি না। কিন্তু উনাদের স্টেপ বাই স্টেপ কিস্তি আকারে দিচ্ছি। ১ লাখ টাকা পেলে আজকে ৫০ হাজার আবার পরের মাসের একই তারিখে আরো ৫০ হাজার টাকা দেয়া হচ্ছে।

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে রূপসা কিং গ্রুপের চেয়ারম্যান লায়ন মজিবুর রহমানসহ ৫ জনকে তলব করেছে দুদক। তাদের সম্পদের তথ্যও চাওয়া হয়েছে। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন বলেন, ‘ওই সমিতির টাকাগুলোর বিষয়ে ও উনাদের সম্পদের বিষয় এই দুইটা অভিযোগ।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *