বোয়ালখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিজারের সঙ্গে ফ্রি ওষুধও

  |  মঙ্গলবার, মে ২৫, ২০২১ |  ৪:১৭ অপরাহ্ণ

বোয়ালখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জটিল প্রসূতিদের অস্ত্রোপচারের (সিজার) পাশাপাশি ফ্রি ওষুধও দেওয়া হচ্ছে। এতে গরিব ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির রোগীরা উপকৃত হচ্ছেন।

সেবার মান ভালো হওয়ায় আশপাশের উপজেলার রোগীরাও আসছেন এ সরকারি হাসপাতালে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. জিল্লুর রহমান জানান, অপারেশন থিয়েটার (ওটি), এক্স-রে মেশিনসহ প্রায় সব সুযোগ-সুবিধা থাকার পরও অ্যানেসথেসিওলজিস্ট বা অচেতনবিদ না থাকায় দীর্ঘ ৪ বছর এ হাসপাতালে সিজারিয়ান সেবা বন্ধ ছিল। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে একজন অচেতনবিদ এনে চার বছর পর প্রথম সিজারিয়ান অপারেশন করা হয়। এরপর তিনি সপ্তাহে একদিন করে আসতেন। সম্প্রতি এ হাসপাতালে ডা. তাসনুভা তানজিল নামের একজন অচেতনবিদকে জুনিয়র কনসালটেন্টকে পদায়ন করা হয়। এখন নিয়মিত সিজারিয়ান অপারেশন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এ হাসপাতালে রোগী কল্যাণ সমিতির পক্ষ থেকে গরিব অসহায় মা-বোনদের সিজারের ওষুধপত্র বাবদ সব খরচ দেওয়া হয়। একজন প্রসূতি মা’র অস্ত্রোপচারে ৩ থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকার ওষুধপত্র প্রয়োজন হয়। এ ছাড়া অন্য গরিব রোগীদের এক স্লিপে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত ওষুধের জন্য দেওয়া হয়।
সূত্র জানায়, সোমবার (২৪ মে) সকাল ১০টায় বোয়ালখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনি) ডা. স্মিতা মুহুরী ও মেডিক্যাল অফিসার ডা. কান্তা অধিকারীর তত্ত্বাবধানে সিজারিয়ান অপারেশন সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এনেস্থিসিয়া কার্যক্রম পরিচালনা করেন ডা. তাসনুভা তানজিল। এখন মা ও নবজাতক সুস্থ রয়েছেন।

অপারেশনে সহযোগী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র স্টাফ নার্স তন্দ্রা দেওয়ানজী এবং ওটি অ্যাটেনডেন্ট মো. সালাউদ্দিন। সিজারিয়ান কার্যক্রমটি মনিটরিং করেন আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. রাজর্ষি নাগ।