চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে রাতে ম্যানসিটি-চেলসি মুখোমুখি

  |  শনিবার, মে ২৯, ২০২১ |  ১২:১৬ অপরাহ্ণ

চ্যাম্পিয়নস লিগের এবারের রং নীল। ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি—দুই ক্লাবের প্রতীকই নীল। শনিবার দিবাগত রাতে ম্যানচেস্টার নাকি লন্ডন, আলোঝলমলে হবে কোন শহরের নীল আকাশ? প্রথমবার ফাইনালে পৌঁছেই বাজিমাত করতে মরিয়া পেপ গার্দিওলার দল। আর চেলসি প্রতীক্ষায় দ্বিতীয় চ্যাম্পিয়নস লিগের। শেষ হাসিটা কে হাসবে, জানা যাবে রাতে পোর্তোয় ১৬ হাজার ৫০০ দর্শকের সামনে হতে যাওয়া ফাইনাল শেষেই।

চ্যাম্পিয়নস লিগে অল ইংলিশ ফাইনাল হচ্ছে মাত্র তৃতীয়বার। ২০০৮ সালে চেলসি-ম্যানইউ আর ২০১৯ সালে মুখোমুখি হয়েছিল লিভারপুল-টনেটহাম। তবে এবার ফ্রাংক ল্যাম্পার্ডের কাছ থেকে মৌসুমের মাঝপথে দায়িত্ব নেওয়ার সময় ফাইনাল ভাবনাতেই ছিল না টমাস টুখেলের। চেলসি প্রিমিয়ার লিগে ৯ নম্বরে পিছিয়ে যাওয়ায় সেরা চারে থাকাটা ছিল চ্যালেঞ্জ। সেই অভিযানে সফল হওয়ার পাশাপাশি চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে পৌঁছে ইতিহাস গড়েছেন টুখেল। দুটি ক্লাবের হয়ে টানা দুই ফাইনাল খেলতে পারেননি আর কোনো কোচ। তবে গতবারের মতো আশাভঙ্গের বেদনায় পুড়তে চান না টুখেল, ‘ফুটবলে ৯০ মিনিটেই ব্যবধান কমানো সম্ভব। আমরা সর্বশেষ দুই ম্যাচে হারিয়েছি ম্যানসিটিকে। এই আত্মবিশ্বাসে জেতার জন্যই খেলব ফাইনালটা।’

এফএ কাপ সেমিফাইনালের পর লিগে ইতিহাদে চেলসির কাছে হেরেছে ম্যানচেস্টার সিটি। সেই হতাশা ভুলে সিটিজেনদের প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতাতে মুখিয়ে পেপ গার্দিওলা। গত চার মৌসুমে সিটিতে তিনটি প্রিমিয়ার লিগ জিতিয়েছেন তিনি। কিন্তু তাঁকে আনাই হয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের জন্য। গার্দিওলাও চান ২০১০-১১ মৌসুমে বার্সেলোনার পর কোনো ক্লাবের হয়ে আরো একবার শিরোপাটা জিততে, ‘চেলসির মতো প্রতিপক্ষের সঙ্গে খেলাটা কঠিন। তবে রক্ষণে অনেক উন্নতি করেছি আমরা। তাই আশা করতেই পারি ভালো কিছুর।’

গ্রুপ পর্বের ছয় ম্যাচে মাত্র এক গোল হজম করেছিল ম্যানসিটি। রক্ষণের পেছনে ৪০০ মিলিয়ন পাউন্ড খরচের সুফলই এটা। পাশাপাশি ফাইনালের পথে তারা দিয়েছে ২৫ গোল। পিছিয়ে নেই চেলসিও। গ্রুপ পর্বে তারা গোল হজম করেছিল দুটি আর ফাইনালের পথে দিয়েছে ২২ গোল। ফাইনালটা তাই উপভোগ্যই হওয়ার কথা।