মাসজুড়ে লায়ন্সের সেবা কর্মসূচি ঘোষণা

  |  শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ |  ৫:০২ অপরাহ্ণ

প্রতিবছরের মতো এবারও অক্টোবর মাসজুড়ে বিভিন্ন সেবা কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে লায়ন্স ক্লাব। তবে এবার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতিতে মানুষের কাছে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ এবং তাদের সচেতন করার ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

আজ শনিবার (২৬ শে সেপ্টেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে ‘সবার ওপরে মানবতা’ স্লোগানে এক সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন সেবা কর্মসূচির তথ্য দেওয়া হয়েছে। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আন্তজার্তিক লায়ন্স ক্লাবের (৩১৫ বি-৪) জেলা গভর্নর ডা. সুকান্ত ভট্টাচার্য।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১লা অক্টোবর বিকেল ৪টায় নগরীর জিইসি মোড় থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালির মাধ্যমে সেবা মাসের উদ্বোধন করা হবে। এরপর ১ অক্টোবর থেকে ৩১ তারিখ পর্যন্ত চলবে দেশজুড়ে বিভিন্ন ক্লাবের পক্ষ থেকে সেবা কার্যক্রম। লায়ন্সের চট্টগ্রাম জেলার ৮৩টি ক্লাবের মাধ্যমে ২ হাজার ৬১৬ জন লায়ন সদস্য এই সেবা কার্যক্রমে যুক্ত থাকবেন।

অক্টোবর মাসজুড়ে চট্টগ্রামের ১৫ টি জেলায় আই ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছে। এসব আই ক্যাম্প থেকে ৫০০ জনেরও বেশি গরীব রোগীকে বিনামূল্যে চোখের ছানি অপারেশন করা হবে। শিশুদের ক্যান্সার প্রতিরোধ কর্মসূচি পালিত হবে মাসব্যাপী। ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসা ও সচেতনতা তৈরি, এতিমখানা ও অনাথালয়ে খাদ্য বিতরণসহ আরও বিভিন্নধরনের সেবা দেওয়া হবে সাধারণ মানুষকে।
সুকান্ত ভট্টাচার্য বলেন, ‘প্রতিবছর অক্টোবর মাসকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে আমরা সেবার কর্মসূচি আয়োজন করি। এর ধারাবাহিকতায় এবারও করেছি। আমাদের উদ্দেশ্য মানুষকে সেবা দেওয়া। একইসঙ্গে জনসাধারণকে সচেতন করা। এটা আমরা সারাবছর ধরেই করে থাকি।’

সাবেক জেলা গভর্ণর কামরুন মালেক বলেন, ‘সারাবিশ্ব ভয়াবহ কোভিড-১৯ মহামারির কবলে আক্রান্ত। আমাদের দেশও আক্রান্ত। আমরা লায়ন্স ক্লাবের পক্ষ থেকে শুরু থেকেই মহামারি সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি, মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং গরীব-দুঃস্থ মানুষের জন্য খাবার বিতরণ করে আসছি। সেবার মাসে এই কার্যক্রম আরও জোরদার করা হবে। জানি না, এই মহামারি থেকে আমরা কবে মুক্তি পাব। কিন্তু লায়ন্স ক্লাব সাধারণ মানুষের পাশে থাকবে।’

লায়ন্সের প্রেস কনফারেন্স কমিটির চেয়ারম্যান শাহেদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন- সেক্রেটারি হাসান আকবর। এসময় অন্যদের মধ্যে ভাইস গভর্নর আল সাদাত দোভাষ, শেখ শামসুদ্দীন আহমেদ সিদ্দিকী, কেবিনেট সেক্রেটারি অশেষ কুমার উকিল, কেবিনেট ট্রেজারার আশরাফুল আলম, সাবেক জেলা গভর্নর কবির উদ্দিন ভূঁইয়া ও নাজমুল হক চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।