দোকান-রেস্টুরেন্ট খোলা রাখায় ১০৫ জনকে জরিমানা

  |  বুধবার, জুলাই ৭, ২০২১ |  ১২:১৯ অপরাহ্ণ

সরকার ঘোষিত সপ্তাহব্যাপী চলমান লকডাউনের ৬ষ্ঠ দিনেও নগরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় সরকারি বিধিনিষেধ না মেনে দোকান, রেস্টুরেন্ট ও শপিং মল খোলা রাখায় ১০৫ মামলায় ৪৬ হাজার ২শ’ টাকা জরিমানা করা হয়।

গতকাল (৬ জুলাই) নগরের ডবলমুরিং, আগ্রাবাদ, খুলশী, চান্দগাঁও, পাঁচলাইশ, চকবাজার, হালিশহর, কোতোয়ালী, বায়েজিদ, পাহাড়তলী, বন্দর, ইপিজেড, পতেঙ্গা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন। এতে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের ১৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

নগরের ডবলমুরিং ও আগ্রাবাদ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী। এসময় ২৭ মামলায় ২৪ হাজার ২শ’ টাকা জরিমানা করা হয়। খুলশী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৮ মামলায় ২ হাজার ১শ’ টাকা জরিমানা আদায় করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাঈমা ইসলাম। পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ চান্দগাঁও এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৯ মামলায় ২ হাজার ৬৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

এদিকে নগরের পাঁচলাইশ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইনামুল হাছান ও মামনুন আহমেদ অনিক। এসময় তারা ৭ মামলায় ৩ হাজার ৫শ’ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুমা জান্নাত চকবাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১৮ মামলায় ৩ হাজার ৬শ’ টাকা জরিমানা আদায় করেন। তাছাড়া হালিশহর এলাকায় অভিযান চালিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী ১৩ মামলায় ৫ হাজার ৩শ’ টাকা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ রানা ১ মামলায় ১শ’ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

অপরদিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল হাসান কোতোয়ালী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ২ মামলায় ৬শ’ টাকা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বায়েজিদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪ মামলায় ১ হাজার ১শ’ টাকা ও পাহাড়তলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২ মামলায় ২৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নূরজাহান আক্তার সাথী। পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্লাবন কুমার বিশ্বাস বন্দর ও ইপিজেড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬ মামলায় ৯শ’ টাকা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্ত পতেঙ্গা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৮ মামলায় ১ হাজার ৯শ’ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ বিস্তার রোধ করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন নগরজুড়ে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে। লকডাউন সফল করতে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।