চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন চলাকালে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত

  |  শনিবার, অক্টোবর ১০, ২০২০ |  ৭:৪৯ অপরাহ্ণ

চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন চলাকালে কেন্দ্রের বাইরে বন্ধুদের ছুরিকাঘাতে এক কিশোর নিহত হয়েছে। শনিবার দুপুরে শহরের গনি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের সামনের সড়কে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মোঃ ইয়াসিন (১৮) শহরের কোড়ালিয়া এলাকার হারুন মোল্লার ছেলে। এই ঘটনার পর পুলিশ ও বিজিবি ঘটনাস্থল ঘিরে রাখে। পরে দুর্ঘটনার পরপরই ঘাতক সাহেদ দ্রুত গাঢাকা দেয়। নিহত মো. ইয়াসিন চাঁদপুর পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী হোসাইন আহমেদ হেলালের সমর্থক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মোঃ ইয়াসিন ও তার বন্ধু সাহেদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এতে অন্য বন্ধুরাও যোগ দেয়। একপর্যায়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে পকেট থেকে ধারালো চাকু বের সাহেদ এবং তা বন্ধু মোঃইয়াসিনের গলায় বসিয়ে দেয়। এমন ঘটনায় গুরুতর আহত মো. ইয়াসিনকে প্রথমে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান আশপাশের লোকজন। সেখানে অবস্থার অবনতি দেখা দিলে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যায় মো. ইয়াসিন। পেশায় টেইলারিং দোকানের কর্মচারী নিহত মো. ইয়াসিন তিন ভাইয়ের মধ্যে সবার বড়। তাকে হত্যার জন্য দায়ী অপর কিশোর শহরের কোড়ালিয়া এলাকার সফিক মিয়াজির ছেলে সাহেদ। বয়সে সে নিহতের চেয়ে ২ বছরের ছোট। তবে একসঙ্গে চলাফেরা করত।

এদিকে, মোঃ ইয়াসিনের মৃত্যুর ঘটনা স্বজন ও এলাকাবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় পুলিশ ও বিজিবি ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। নিহতের বাবা হারুন মোল্লা ও মা আমেনা বেগম বলেন, তাদের নিরীহ ছেলেকে যারা হত্যা করেছে তাদের বিচার দাবি করে তারা। চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী হোসাইন আহমেদ হেলাল বলেন, যারা তার সমর্থক মো. ইয়াসিনকে হত্যা করেছে তিনি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে পুলিশ ঘটনার অনুসন্ধান করেছে। এতে অভিযুক্তকে দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় চাঁদপুর সদর মডেল থানায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছে।