করোনার আয়ু ২৮ দিন – বললেন গবেষকরা

51
অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা তছনছ করে দিয়েছেন করোনা ভাইরাসের বেঁচে থাকা নিয়ে এ পর্যন্ত আমরা যা জেনে এসেছি। তারা বলছেন, টাকা, মোবাইল ফেনের স্ক্রিনসহ মসৃণ পৃষ্টে ২৮ দিন পর্যন্ত বাঁচতে পারে করোনা ভাইরাস।
একইসঙ্গে এ ২৮ দিনই ভাইরাসগুলোর সংক্রমণ ক্ষমতা থাকে। অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় বিজ্ঞান সংস্থার গবেষকরা এ তথ্য জানিয়েছেন। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গবেষণাগারে নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে অন্ধকারের মধ্যে গবেষণাটি করা হয়েছে। কারণ অতি বেগুনি রশ্মি করোনা ভাইরাসকে মেরে ফেলে।
এ পর্যন্ত গবেষকরা বলে এসেছেন, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই হাঁচি, কাঁশি ও কথা বলার মাধ্যমে করোনা ছড়ায়। কিন্তু বাতাসে ভেসে বেড়ানো ভাইরাসও সংক্রমণ ছড়ায় সে প্রমাণও পাওয়া গেছে।
অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা বলছেন, করোনা ভাইরাস ‘অত্যন্ত শক্তিশালী’। অন্ধকারে ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে ব্যবহার করা গ্লাস এবং প্লাস্টিক ও কাগজের ব্যাংক নোটের মতো মসৃণ পৃষ্ঠতলে ভাইরাসটি ২৮ দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। তবে সাধারণ ফ্লুর ভাইরাস ওই একই পরিবেশে ১৭ দিন পর্যন্ত বাঁচতে পারে। ভাইরোলজি সাময়িকীতে প্রকাশিত ওই গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাস নিরেট মসৃণ যে কোনো পৃষ্ঠতলের তুলনায় কাপড়ে কম সময় বাঁচে। এটি কাপড়ের মতো বহুরন্ধ্র উপকরণের তুলনায় মসৃণ, রন্ধ্রবিহীন পৃষ্ঠতলে বেশি সময় বেঁচে থাকে। ১৪ দিনে কাপড়ের মাধ্যমে কোনো সংক্রমণ ছড়ায়নি বলে দেখা গেছে।