স্বামীর রেকর্ডে সানিয়া মির্জার আবেগঘন টুইট

58

বর্ষীয়ান শোয়েব মালিকের এখনও ক্রিকেট খেলা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। সেই ‘বুড়ো’ মালিকই সমালোচকদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন যে তিনি এখনও ফুরিয়ে যাননি। পাকিস্তানের ন্যাশনাল কাপ টি-টোয়েন্টিতে আরও একটি চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্স তারই প্রমাণ।

এর মধ্য দিয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দারুণ একটি রেকর্ড গড়লেন শোয়েব মালিক। প্রথম এশিয়ান ক্রিকেটার হিসেবে ১০ হাজার রানের গণ্ডি পার হলেন এ পাকিস্তানি। বিশ্ব ক্রিকেটে গেইল ও পোলার্ডের পর তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে এ কীর্তি গড়লেন শোয়েব।

ন্যাশনাল কাপ টি-টোয়েন্টিতে খাইবারপাখতুন দলের হয়ে টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ ম্যাচে অর্ধশত রান করেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শোয়েব মালিক। বেলুচিস্তানের বিপক্ষে ৪৪ বলে ৭৪ রানের ইনিংস খেলে তিনি এ রকর্ড স্পর্শ করেন।

দীর্ঘ ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে ৩৯৫টি টি-টোয়ন্টি ম্যাচ খেলে ১০ হাজারি ক্লাবে ঢুকে পড়েন শোয়েব মালিক। এর আগে এ ফরম্যাটে ১০ হাজার রান করেন ক্যারিবীয় তারকা ক্রিস গেইল ও কাইরন পোলার্ড।

স্বামীর কীর্তিতে টুইটারে শোয়েবের স্ত্রী সানিয়া মির্জা লেখেন, ‘দীর্ঘস্থায়িত্ব, ধৈর্য, ত্যাগ, শ্রম ও বিশ্বাসের প্রতীক হলেন শোয়েব মালিক।’

আর শোয়েব মালিক লিখেছেন, ‘পাকিস্তানের মানুষকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। তবে আক্ষেপ আজ বাবা জীবিত নেই, পারেননি আমার এই রেকর্ড দেখে যেতে।’

শোয়েব মালিককে শুভেচ্ছা জানিয়েছে আইসিসি। ভারতের সুরেশ রায়না ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন মাইফলকে পোঁছানোর জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন।

টেস্ট ও সীমিত ওভারের ক্রিকেট থেকে বিদায় নিলেও এখনও টি-টোয়েন্টি খেলে যাচ্ছেন শোয়েব। ২৮৭ আন্তর্জাতিকওয়ানডে খেলে করেছেন ৭ হাজার ৪৩৫ রান। উইকেট নিয়েছেন ১৫৮টি। টেস্ট ক্রিকেটে ৩৫ ম্যাচ খেলে ১ হাজার ৮৯৮ রান করেছেন, উইকেট নিয়েছেন ৩২টি। আর টি-টোয়েন্টিতে ১১৬ ম্যাচ খেলে ২ হাজার ৩৩৫ রান করেছেন। উইকেট নিয়েছেন ২৮টি।