‘আল্লামা শফিকে জামাত-শিবিরের প্রেতাত্মারা হত্যা করেছে’

165

হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশের সদ্য প্রয়াত আমীর আল্লামা শাহ আহম্মদ শফীকে ‘জামায়াত-শিবিরের প্রেতাত্মারা’ হত্যা করেছে বলে দাবি করেছেন তার ছোট শ্যালক মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন। এ হত্যাকাণ্ডের বিচার বিভাগীয় তদন্তের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

আজ শনিবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে ‘হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ’ ব্যানারে আয়োজিত এক অংশের সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আল্লামা শফীকে হত্যার বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি করে ১৫ নভেম্বর হতে যাওয়া হেফাজতে ইসলামের আরেক অংশের কাউন্সিল বন্ধের দাবি জানানো হয়েছে৷

লিখিত বক্তব্যে মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন বলেন, ‘গত ১৮ সেপ্টেম্বর সুপরিকল্পিতভাবে জামায়াত-শিবিরের প্রেতাত্মারা আল্লামা শাহ আহমেদ শফী হুজুরকে হাটহাজারী মাদ্রাসায় হত্যা করেছে। শফী হুজুর স্বাধীনতার পক্ষে থাকার কারণে তার এ পরিণতি করেছে তারা।’

তিনি বলেন, ‘শফী হুজুর প্রকাশ্যে স্বাধীনতাবিরোধীদের (জামায়াত-শিবির) বিরুদ্ধে বক্তব্য দিতেন৷ তাদের বিরুদ্ধে নানা বইও লিখেছেন। এ কারণে শফী হুজুরের প্রতি জামায়াত-শিবিরের দীর্ঘদিনের ক্ষোভ ছিল। সেই ক্ষোভ থেকে এই হত্যাকাণ্ড। শফী হুজুরকে হত্যার উদ্দেশে ও হাটহাজারী মাদ্রাশা নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য জামায়াত-শিবির ১৯৮৫ সালে হামলা চালায়। দেশের প্রতি মমত্ববোধ ও কওমির প্রতি ভালোবাসা থাকায় নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ হামলা রুখে দেয় শফী হুজুর।’