চসিক প্রশাসক বেশ কিছু ভালো কাজ করেছেন, যা আমাদের মধ্যে আশার সঞ্চার করেছেঃ তাজুল ইসলাম

  |  শনিবার, নভেম্বর ২৮, ২০২০ |  ৩:৪২ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজনের সমসাময়িক বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজের প্রশংসা করলেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, আমাদের চসিক প্রশাসক ইতোমধ্যে বেশ কিছু ভালো কাজ করেছেন, যা আমাদের মধ্যে আশার সঞ্চার করেছে।

সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় চট্টগ্রামের উন্নয়ন করা সম্ভব বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

আজ শনিবার (২৮ নভেম্বর) চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে আয়োজিত ‘চট্টগ্রামের উন্নয়ন, শিল্পায়ন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় মন্ত্রী চসিক প্রশাসক সুজনের প্রশংসা করে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেছেন, চট্টগ্রাম হচ্ছে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী। এই চট্টগ্রাম উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন আন্তরিক, উন্নয়নমূলক কাজে চট্টগ্রামের প্রশাসনও বেশ আন্তরিক। বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগের সঙ্গে প্রশাসনের তদারকি বেশ প্রশংসনীয়। তিনি বলেন, একটি অঞ্চলের উন্নয়ন মানে দেশের উন্নয়ন। এজন্য প্রতিনিয়ত চট্টগ্রাম অঞ্চলের কাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি বাণিজ্যিক আমদানি রপ্তানির সঙ্গে শিল্পাঞ্চল উন্নয়নের কাজ চলছে। মন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মালবাহী জাহাজ নদী পথে চট্টগ্রাম বন্দরে আসছে। চট্টগ্রাম বন্দরসহ মিরসরাইয়ে ইকোনোমিক জোন গড়ে তোলা হচ্ছে। কিভাবে এই নগরী আরও উন্নয়ন করা যায় সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। তাজুল ইসলাম বলেন, চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে শিল্পাঞ্চল হচ্ছে।

মিরসরাইয়ের সঙ্গে কক্সবাজারে যোগাযোগ সহজ করার লক্ষ্যে একটি মেরিন ড্রাইভ তৈরির প্রস্তাব নেওয়া যেতে পারে। চট্টগ্রামে বে টার্মিনাল প্রস্তুত করার পরিকল্পনা রয়েছে। তৈরি করা হয়েছে আউটার রিং রোড। ‘চট্টগ্রামের উন্নয়ন, শিল্পায়ন’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানটির সভা পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম।

এতে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলালউদ্দিন, চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) এর চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ, বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ, জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (অ্যাডমিন) জাফর আলম, চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম ফয়জুল্লাহ ও বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) এর চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী।