চাঁদা না দেওয়ায় রেলওয়ে কর্মচারীকে হেনস্তা ও হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

102

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।।

চাঁদা না দেওয়ায় দোকান ও সরকারী ঘর ভাংচুরের পর রেলওয়ে কর্মচারীকে শারীরিক ভাবে হেনস্তা ও মামলা দিয়ে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তভোগী রেলওয়ে পোর্টার কাজে নিয়োজিত এ.কে.এম আশরাফ হোসেন জুয়েল।

রবিবার (৬ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করেন ১৩ নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডের খুলশী থানাধীন ঝাউতলা রেলওয়ে কলোনীর এই বাসিন্দা।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন ভুক্তভোগীর ভাই এ.কে.এম আফজাল হোসেন এবং মাতা হামিদা বেগম। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন এ.কে.এম আশরাফ হোসেন জুয়েল।

তিনি বলেন, ঝাউতলা রেলওয়ে কলোনীতে অনৈতিক কর্মকান্ড আখড়া তৈরি হয়, যার মূল নেপথ্যে রয়েছে রাজনৈতিক সাইনবোর্ডধারী কিছু উচ্ছৃংখল যুবক। যার কারণে এলাকাবাসীর জীবনধারণ করা এক রকম অসম্ভব হয়ে যায়। যার প্রতিবাদ করায় তারা আমার পরিবারের ও আমার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে চাঁদা দাবী করে। আমি দিতে অপারগতা জানালে বিভিন্ন ভাবে আমাকে হেনস্তা করেন। মিথ্যা মামলা দিয়ে অপদস্ত করার চেষ্টা করেন। আমি আজ এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, ও চট্টগ্রাম পুলিশ কমিশনার এর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি যাতে ঝাউতলা এলাকাকে মাদকমুক্ত, অনৈতিক কমর্কান্ড ও আমার পরিবার নিরাপদে বসবাস করতে পারি।