পুলিশের ফেসবুকে যত বিধিনিষেধ

  |  মঙ্গলবার, মার্চ ৯, ২০২১ |  ৮:৪৮ অপরাহ্ণ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের প্রাতিষ্ঠানিক পেজে কোনমতেই ব্যক্তিগত ছবি দেয়া যাবে না। এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট আইন থাকলেও বিষয়টি তেমন কেউ মানছে না। প্রাতিষ্ঠানিক ফেসবুক পেইজে যে যার ইচ্ছেমতো নিজের ছবি ব্যবহার করছে। অনেকে আছেন প্রাতিষ্ঠানিক ফেসবুক পেজে প্রতিষ্ঠানের চেয়ে নিজের প্রচারণা বেশি করছেন। এ অবস্থায় প্রাতিষ্ঠানিক ফেসবুক পেজ তদারকিতে নেমেছে পুলিশ সদর দপ্তর।

সম্প্রতি পুলিশ সদর দপ্তর থেকে মাঠ পর্যায়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে সুনির্দিষ্ট নিয়মাবলীসহ চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে বাংলাদেশ পুলিশের সকল উর্ধ্বতন ইউনিটকে তাদের স্ব স্ব অধস্তন ইউনিটের ফেসবুক পেজে এডমিন হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হতে হবে। প্রত্যেক অধস্তন অফিসকে নির্দেশনা মোতাবেক প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

চিঠিতে যা বলা হয়েছে:

পুলিশ সদর দপ্তরের এ.আই.জি (মিডিয়া এন্ড পি আর) সোহেল রানা স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, সারাদেশে ছয় হাজার ৯১২টি বিটের মাধ্যমে বিট পুলিশিং কার্যক্রম চালু হয়েছে। প্রতিটি বিটের জন্য ইতিমধ্যে একটি করে ফেসবুক পেজ চালু করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশের সকল ইউনিটের নিজস্ব ফেসবুক পেজ রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে যে কোন প্রকার অনাকাক্সিক্ষত ও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে উর্ধ্বতন ইউনিট তাদের স্ব স্ব অধস্তন ইউনিটের ফেসবুক পেজের কার্যক্রমের উপর তদারকি এবং নিয়ন্ত্রণ করবে।

নগর পুলিশের বিভিন্ন থানা ও বিট পুলিশের ফেসবুক পেজ খুলে দেখা গেছে অধিকাংশ কর্মকর্তা প্রতিষ্ঠানের ছবির বদলে নিজের ছবি কিংবা গ্রুপ ছবি ব্যবহার করেছেন। স্ব স্ব অফিস প্রধান ফেসবুক পেজের এডমিন হিসাবে রয়েছেন।

পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, এখন থেকে কেউ চাইলে এককভাবে এডমিন থাকতে পারবেন না। উর্ধ্বতন ইউনিট তাদের স্ব স্ব অধস্তন ইউনিটের ফেসবুক পেজের কার্যক্রমের উপর তদারকি এবং নিয়ন্ত্রণ করবে। যেমন রেঞ্জ পুলিশের ক্ষেত্রে জেলা পুলিশ সুপার অফিসের এডমিন গ্রহণকারি উর্ধ্বতন অফিস হচ্ছে রেঞ্জ ডিআইজি অফিস আর রেঞ্জ ডিআইজি অফিস পুলিশ সদর দপ্তরে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

একইভাবে সার্কেল অফিস এবং থানার ফেসবুকে জেলা পুলিশ সুপার, থানা এবং বিট পুলিশের ফেসবুকে সার্কেল অফিস ও বিট পুলিশের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট থানাকে এডমিন থাকতে হবে।

মেট্রোপলিটন পুলিশের ক্ষেত্রে চিঠিতে বলা হয়েছে, উপকমিশনার অফিসের ফেসবুক পেজে পুুলিশ কমিশনার অফিসকে এডমিন হিসাবে রাখতে হবে। সহকারী পুলিশ কমিশনার ও থানার ফেসবুকে উপ-কমিশনার অফিস, থানা এবং বিট অফিসের ফেসবুকে সহকারী কমিশনার এবং বিট পুলিশের ফেসবুক পেজে থানাকে এডমিন হিসাবে যোগ করতে হবে। জেলা ও মেট্রোপলিটন উভয় ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন বা তদূর্ধ অফিসে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে। স্ব স্ব ইউনিটের অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী নতুন এডমিন হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হওয়া উর্ধ্বতন অফিস তদুর্ধ অফিসকে এডমিন হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষের বরাবরে প্রতিবেদন দিতে হবে।