ঝন্টু মামলা করেননি, চা খেয়ে চলে গেছেন : আইনজীবী

  |  বৃহস্পতিবার, মার্চ ১১, ২০২১ |  ১০:২৬ অপরাহ্ণ

‘তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমার পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু দাবি করেছেন, তিনি চিত্রনায়িকা প্রার্থনা ফারদিন দীঘি, তাঁর বাবা সুব্রত বড়ুয়া ও মামার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন। তবে ঝন্টুর আইনজীবীর দাবি, মামলা এখনো হয়নি। ঝন্টু তাঁর কাছে এসে চা খেয়ে চলে গেছেন।

ঝন্টু আজ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছেন বলে দেশের একাধিক গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এ নিয়ে বিকেলে ও সন্ধ্যায় দুই দফা তাঁর সঙ্গে কথা বলে এনটিভি অনলাইন। দুই দফাই তিনি মামলার ব্যাপারটি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ঢাকার জজ কোর্টে মামলা করেছি। আমার আইনজীবী মোহাম্মদ ফোরকান মিঞা।’

তবে সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী এনটিভি অনলাইনকে জানান ভিন্ন তথ্য। তাঁর দাবি, ‘পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু ভাই আমার কাছে এসেছিলেন। শলা-পরামর্শ করে, চা খেয়ে চলে গিয়েছেন। কোনো মামলা করেননি।’

এমন তথ্যের পর পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর সঙ্গে আবার যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি মামলাটি করেছি।’ এরপর তাঁর কাছে মামলা নম্বর চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘খোদার কসম, আমি মামলা নম্বর জানি না। আমি সই করে চলে এসেছি। বাকিটা উনি (অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ফোরকান মিঞা) জানেন।’

তারপর আবারও অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ফোরকান মিঞার সঙ্গে যোগাযোগ যোগাযোগ করা হলে , সে সময় তাঁর কাছে বলা হয়, দেলোয়ার জাহান ঝন্টু দুই দফায় মামলা করার ব্যাপারটি নিশ্চিত করছেন। স্বাক্ষর করার কথাও বলেছেন। উনি আসলে কোথায় সাক্ষর করেছেন, এমন প্রশ্নে আইনজীবীর উত্তর, ‘উনি স্বাক্ষর করেননি।’

একাধিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমা নিয়ে পেশাদার মন্তব্য না করায় এক কোটি টাকার ক্ষতিপূরণের মামলা করেছেন প্রযোজক সিমি ইসলাম। একই সঙ্গে দীঘি, তাঁর বাবা সুব্রত ও মামার নামে পৃথক আরেকটি মানহানির মামলা করেছেন নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু।

জানা গেছে, আগামী ১২ মার্চ মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমার পোস্টার ও ট্রেলারে হতাশ হয়েছেন দর্শকদের একাংশ। অন্তর্জালজুড়ে দীঘি যতটা জনপ্রিয়, ঠিক ততটাই সমালোচনা হচ্ছে প্রথম সিনেমার মান নিয়ে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে, সিনেমাটির ট্রেলার দেখে নিজের ভালো না লাগার কথা জানান দীঘি। তাঁতেই ক্ষুব্ধ হন দেলোয়ার জাহান ঝন্টু।