দেশের বাইরে অধিনায়ক তামিমের প্রথম মিশন

  |  শুক্রবার, মার্চ ১৯, ২০২১ |  ৪:৩৮ অপরাহ্ণ

গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর পর তামিমের নেতৃত্বে বাংলাদেশ গিয়েছিল শ্রীলঙ্কা সফরে। সেই সিরিজ লজ্জাজনকভাবে হারতে হয়েছে। তখন তামিম ছিলেন ‘ভারপ্রাপ্ত’ অধিনায়ক। আর এবার পূর্ণাঙ্গ অধিনায়ক হিসেবে দল নিয়ে গেছেন নিউজিল্যান্ড সফরে। অধিনায়ক হিসেবে দল নিয়ে কেমন কাজ করছেন তামিম? ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে দেশসেরা ওপেনার বলেছেন, তিনি দলের সবার সঙ্গে কথা বলছেন। উদ্দীপ্ত করার চেষ্টা করছেন। আর দেশ হোক বা দেশের বাইরে- সর্বত্রই তিনি নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত।

আজ বৃহস্পতিবার তামিম বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের সবসময়ই আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হয়। আমি তো এখন ক্যাপ্টেন। এখন আমি তো আর পিক এন্ড চুজ করতে পারব না যে আমি কই কই ক্যাপ্টেনসি করব দেশে বা দেশের বাইরে। কিন্তু এখন থেকে যেটাই আসবে সেটা মেনে নিয়ে এজ এ টিম বা নিজস্ব যতটুকু পারফর্ম করতে পারি সবাই এটাই আমাদের লক্ষ্য। যেহেতু এখানে আমরা ভালো কিছু করতে পারিনি তো এখানে ভালো কিছু করার সুযোগ আছে।’

নিউজিল্যান্ডে তিন ফরম্যাটে ২৬টি ম্যাচ খেলে কখনই জয় পায়নি বাংলাদেশ। এবার সেই ধারা বদলে দেওয়ার প্রত্যয় তামিমের কণ্ঠে, ‘আমরা যদি সিরিজ জিততে পারি তাহলে সেটা অসাধারণ একটি অর্জন হবে। আমাদের মধ্যে সেই জিনিসটা রয়েছে যে আমাদের ভালো করতে হবে। আর সবচেয়ে যেটা গুরুত্বপূর্ণ যখন আমি প্রত্যেকটা প্লেয়ারদের সাথে কথা বলি আমি দেখি তারা খুব পজিটিভ। এটা খুবই ভালো। আমি যেটা বললাম এটা তো নাও কাজ করতে পারে। বাট আমি যা বলেছি এখন আমরা খুবই আত্মবিশ্বাসী।’

ওয়ানডে সিরিজের প্রতিটি ম্যাচ ২০২৩ বিশ্বকাপের বাছাইয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তামিম বলেন, ‘ধরেন আমাদের এই সিরিজটা ও সামনে দক্ষিণ আফ্রিকায় একটা সিরিজ আছে। সাধারণত এই দুইটা দেশে আমাদের ফলাফল খুব একটা ভালো না। এসব জায়গায় এসে যদি আমরা ম্যাচ জেতা শুরু করে দেই, তাহলে মাস্ট উইন সিরিজগুলোতে ব্যর্থ হলে ততটা সমস্যা হবে না। আমাদের উপর অত চাপ পড়বে না। এই সিরিজ এবং পরবর্তী সিরিজ আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কোনো না কোনো সময় থেকে তো শুরু করতে হবে। তো এই সিরিজ থেকেই যদি করতে পারি সেটা অনেক বড় স্টেপ হবে। আমি আশাবাদী আল্লাহর রহমতে আমঠে যদি আমাদের সব পরিকল্পনা প্রয়োগ করতে পারি, তাহলে তো খুব ভালো মাশাল্লাহ।’