এক সময়ে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া যায় না কেন

  |  মঙ্গলবার, মার্চ ২৩, ২০২১ |  ১১:৫৯ অপরাহ্ণ

দৈনিক পাঁচবার নির্ধারিত সময়ে নামাজ পড়া ফরজ। এই পাঁচ ওয়াক্ত একসঙ্গে পড়া যায় না। পবিত্র কোরআনে এসেছে, ‘…নির্ধারিত সময়ে নামাজ কায়েম করা মুমিনদের জন্য অবশ্য-কর্তব্য।’ (সুরা : নিসা, আয়াত : ১০৩)

প্রশ্ন হলো, নামাজ একসময়ে কেন নির্দিষ্ট হলো না? পৃথকভাবে পাঁচ ওয়াক্ত কেন নামাজ পড়তে হয়?

এই প্রশ্নের জবাব হলো, দেহের শক্তির জন্য যেমন বারবার আহার গ্রহণ প্রয়োজন, তেমনি রুহের সুস্থতা, পরিচ্ছন্নতা ও শক্তির জন্য রুহানি আহারের প্রয়োজন। তাই দেহের শক্তির জন্য যেভাবে কয়েকবার আহার গ্রহণ করা হয়, তেমনি আত্মার প্রশান্তি ও শক্তির জন্য দৈনিক পাঁচবার নামাজ পড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রুহ অতি সূক্ষ্ম বস্তু। এর সুস্থতা, পরিচ্ছন্নতা, শক্তি ও দৃঢ়তার জন্য রুহানি আহার তথা নামাজের প্রয়োজন বেশি। সুতরাং দেহকে শক্তিশালী ও তরতাজা রাখতে যেমন কয়েকবার আহার করা হয়, তেমনি রুহানি আহার হিসেবে দিন-রাতে পাঁচবার নামাজ পড়তে বলা হয়েছে। পাঁচ সংখ্যাটি বেছে নেওয়ার কারণ কেউ কেউ এভাবে ব্যাখ্যা করেছেন যে ফরজ নামাজ আসলে ৫০ ওয়াক্ত ছিল। মিরাজের রাতে মহানবী (সা.) আল্লাহর কাছে আবেদন করে করে তা কমিয়ে পাঁচ ওয়াক্ত করে দেন।

কেউ কেউ বিষয়টি এভাবে ব্যাখ্যা করেছেন যে মানুষের জীবনে পাঁচটি অবস্থা আছে। শুয়ে থাকা, বসে থাকা, দাঁড়িয়ে থাকা, ঘুমিয়ে থাকা ও জাগ্রত থাকা। এ পাঁচ অবস্থার বিপরীতে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের বিধান দেওয়া হয়েছে।