নিউজিল্যান্ড সফরের ব্যর্থতা ভুলে যেতে চান মাহমুদউল্লাহ

  |  বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১, ২০২১ |  ৯:৫০ অপরাহ্ণ

অনেক আত্মবিশ্বাস নিয়ে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। উদ্দেশ্য ছিল সেখান থেকে অধরা জয় নিয়ে ফেরার।
কিন্তু সফর শেষে শূন্য হাতেই ফিরতে হচ্ছে টাইগারদের। দুই সিরিজেই পেতে হলো হোয়াইটওয়াশের লজ্জা।

এই নিয়ে কিউইদের বিপক্ষে তাদের মাটিতে সব সংস্করণ মিলিয়ে এটি বাংলাদেশের টানা ৩২তম হার! স্বাগতিকদের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত জয় নেই একটিও।

অথচ ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে ভালো প্রস্তুতির কথা শোনা গেছে তামিম-মুশফিকদের মুখে। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভরাডুবির পর দ্বিতীয় ম্যাচে তবু কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষণ দেখা গেল। কিন্তু এরপর তৃতীয় ওয়ানডে ও পুরো টি-টোয়েন্টি সিরিজে পাত্তাই পেল না সফরকারীরা।

এত প্রস্তুতি সত্ত্বেও এমন ভরাডুবির কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বিশেষ করে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচে ১০ ওভারের ম্যাচে মাত্র ৭৬ রানে অলআউট হওয়ায় হতাশ ঝরে পড়লো টি-টোয়েন্টি অধিনায়কের মুখ থেকে।

উরুর চোটে শেষ ম্যাচে খেলেননি মাহমুদউল্লাহ। তার জায়গায় নেতৃত্ব দেন লিটন দাস। কিন্তু ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে হাজির হলেন মাহমুদউল্লাহ। আপাতত সিরিজটা ভুলে যেতেই চান তিনি, ‘আমরা হয়তো সিরিজটা ভুলেই যেতে চাইবো। আমরা এখানে কিছু অর্জন করতে এসেছিলাম। এর আগে আরও কয়েকবার এখানে এসেছি। তবে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার উদ্দেশ্যেই এসেছিলাম। কিন্তু আমরা আমাদের লক্ষ্য পূরণ করতে পারিনি। ’

নিজে না খেললেও দলের ৯.৩ ওভারে অলআউট হয়ে ৬৫ রানে ম্যাচ হারাটা মানতে পারছেন না অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান। বললেন, ‘আসলে ৭৬ রানে অলআউট হলে সেখান থেকে আর কিছু নেওয়ার থাকে না। সিরিজজুড়ে আমরা ভালো ক্রিকেট খেলিনি। আমরা এখানে আগেভাগে এসে কুইন্সটাউনে প্রস্তুতি নিয়েছি। ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করেছে, কিন্তু তা মাঠে কাজে লাগাতে পারিনি। ’

আপাতত এই সফরের ব্যর্থতা ভুলে মাহমুদউল্লাহ এখন দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের অপেক্ষায়। বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বলেন, ‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আমাদের খেলার কথা আছে। আমি সেই সিরিজের দিকে তাকিয়ে আছি। ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বেশ কিছু বড় সিরিজ আছে। ঘরের মাঠে খেলার সুবিধা কাজে লাগানোর চেষ্টা থাকবে। বাইরের চেয়ে দেশের মাটিতে খেলার সময় আমরা বেশি আত্মবিশ্বাসী থাকি। ’