সিএমপিতে ব্যাপক রদবদলের পূর্বাভাস

  |  বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ |  ১:৪৪ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) এর নবনিযুক্ত পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর শুরুতেই পুরো সিএমপিকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। আর সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে রদবদল৷ তবে একাধিক সূত্র জানিয়েছে এই রদবদলের ধারা আরো বিস্তৃত হবে।

একজন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সহ বিভিন্ন পদের পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হতে পারে। তবে কয়েকজন উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তার বদলীর আদেশ পুলিশ হেড কোয়াটার থেকে প্রস্তুত করা হচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে৷ আর অন্যান্য বদলির আদেশ সিএমপি কমিশনারের নির্দেশ সম্পন্ন হবে৷

টেকনাফে মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ হত্যাকান্ডের পর থেকে সারাদেশে পুলিশ বাহিনীর অভ্যান্তরে ‘শুদ্ধি অভিযান’ শুরু করেছে পুলিশ হেডকোয়াটার। পুলিশের অভ্যান্তরিন পেশাগত মার্কশীট পর্যালোচনা করে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বদলির সুপারিশ এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে।

সিএমপি’র দায়িত্ব গ্রহনের পর নগর পুলিশের কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর দীর্ঘদিন ধরে একই থানা, ফাঁড়ি বা দপ্তরে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের তালিকা সংগ্রহ করছেন বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। তিনি পুলিশ হেড কোয়াটার্সের নির্দেশনা মতন ‘শুদ্ধি অভিযানের’ অংশ হিসেবে সিএমপিতে বিতর্কিত অফিসারদের সরিয়ে সৎ ও দক্ষ অফিসার পদায়ন শুরু করেছেন। চলতি সপ্তাহে ৫৯ জন সাব-ইন্সপেক্টরকে বিভিন্ন ইউনিটে বদলি করেছেন সিএমপি কমিশনার। এছাড়া নগর পুলিশের রিজার্ভ অফিসের আরও সাব-ইন্সপেক্টর শফিকুল ইসলামকে বদলি করে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে এসআই বদিউল।

এর আগে গত সোমবার আকবরশাহ থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমানের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন ডবলমুরিং থানার ওসি (তদন্ত) জহির হোসেন। মোস্তাফিজুর রহমানকে বদলি করা হয়েছে সিএমপির ইন সার্ভিস ট্রেনিং সেন্টারে। একই আদেশে সিএমপি কমিশনার খুলশি থানার ওসি হিসাবে চান্দগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ শাহিনুজ্জামানকে পদায়ন করা হয়েছে। অপরদিকে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটে কর্মরত পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়াকে চান্দগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে। এই বদলিতে প্রথমবারের মতন থানার অফিসার ইনচার্জের দ্বায়িত্ব পেয়েছেন দুইজন চৌকস পুলিশ পরিদর্শক যারা ওসি তদন্ত হিসেবে নিজ নিজ যোগ্যতা প্রমান করতে সক্ষম হয়েছেন৷

পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় কালে জানিয়েছিলেন, “আপানারা আমাকে পর্যবেক্ষণ করুন। আমার কাজ দেখুন। তারপর আপনাদের মতামত দেবেন। ” আর সম্প্রতি বদলির বিষয়ে সিএমপি কমিশনার বলেন, “দক্ষ ও যোগ্য লোকদের যোগ্য জায়গায় পদায়ন বা বদলি করা হচ্ছে। পুলিশের কাজে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা এবং গতিশীলতা আনয়নের লক্ষ্যে বদলি করা হচ্ছে।” রদবদলের বিষয়টি পুলিশের একটি রুটিন ওয়ার্ক বলেও উল্লেখ করেন সিএনপি কমিশনার৷

সিএমপি হেড কোয়াটার সূত্র জানিয়েছে পুলিশ সদর থেকে প্রাপ্ত নির্দেশনা মতে শীঘ্রই সিএমপি’র ৪টি থানার ওসি সহ অন্তত আরো ৩৩ জন পুলিশ অফিসার রদবদলের হতে যাচ্ছে৷ এছাড়া উর্ধ্বতন বেশ ক’জন কর্মকর্তাকে অন্যত্র বদলি করার সম্ভাবনা আছে৷ এদের মধ্যে একজন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, দুইজন উপ কমিশনার, ২ জন অতিরিক্ত উপ কমিশনার এবং ৪ জন সহকারী কমিশনার রয়েছেন৷ তালিকায় নাম থাকা কয়েকজন দীর্ঘদিন সিএমপিতে  কর্মরত থাকায় তাদের অন্যত্র বদলির প্রক্রিয়া চলছে বলে পুলিশ হেড কোয়াটার সূত্রে জানা গেছে৷ ইতিমধ্যে পুলিশ সদর দপ্তরের আদেশে মহানগর গোয়েন্দা বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার জাহেদুল ইসলামকে মহেশখালীতে বদলি করা হয়েছে। অন্যান্যদের শীঘ্রই বদলির আদেশ দেয়া হবে। সে ক্ষেত্রে আগামী সপ্তাহে ব্যাপক রদবদলের প্রক্রিয়া শুরুর আভাস মিলেছে৷